সংবিধানে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম থাকলে সমস্যা কোথায়? মাঠে নামছে হেফাজত…

আবদুল কাদির: আবারও মাঠে নামছে হেফাজত। সংবিধানে রাষ্ট্রধর্ম নিয়ে হাইকোর্টে করা একটি রিটকে কেন্দ্র করে হেফাজত মাঠে নামার ঘোষণা দিয়েছে। এ নিয়ে প্রথম ধাপে তারা আগামী ২৫ মার্চ সারাদেশে বিক্ষোভ সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছেন।

২৮ বছর আগের একটি আবেদনের ভিত্তিতে দেওয়া রুলের ওপর আগামী ২৭ মার্চ হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চে শুনানি শুরু হচ্ছে। এর প্রতিবাদেই হেফাজতের এ সমাবেশ।

হেফাজত-নেতারা আশংকা প্রকাশ করে বলেন, বাংলাদেশের ৯২ ভাগ মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ একটি দেশে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল হলে দেশের সার্বভৌমত্ব ধ্বংস হয়ে যাবে। তারা বলেন, ১৯৮৮ সালে এরকম একটি রিট করা হলে আদালত তা সাথে সাথে খারিজ করে দিয়েছিলেন। বর্তমান আদালত কেন এই রিট সাথে সাথে খারিজ না করে গ্রহণ করল? ৯২ ভাগ মুসলমানের দেশে এরকম রিট গ্রহণ করা যায় না। আদালতের ঘাড়ে বন্দুক রেখে কোনো কুচক্রি মহল পাখি শিকার করতে চাইছে। এটা দেশের মানুষ হতে দেবে না।

তারা বলেন, পাখি অনেক আছে কিন্তু জাতীয় পাখি দোয়েল। মাছ অনেক আছে কিন্তু জাতীয় মাছ ইলিশ, ভাষা অনেক আছে জাতীয় ভাষা বাংলা, ফুল অনেক আছে জাতীয় ফুল শাপলা। সেরকম ধর্ম অনেক আছে। তাহলে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম হতে বাধা কোথায়? রাষ্ট্রধর্ম বাদ দেওয়ার অর্থ এ দেশে নাস্তিক্যবাদ প্রতিষ্ঠা করা। সেটাই উদ্দেশ্য। এদেশে সরকার মুসলামন, স্পিকার মুসলমান, প্রধানমন্ত্রী মুসলমান, বিরোধী দলীয় নেত্রী মুসলমান, আমরাও মুসলমান। রাষ্ট্রধর্ম বাদ দেওয়া হলে কোটি কোটি তৌহিদী জনতা প্রতিহত করবে।

আধুনিক বিশ্বের ৪৩টি মুসলিম দেশে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম এবং প্রায় ৫০টি দেশের সংবিধানে রাষ্ট্রধর্ম নির্ধারিত রয়েছে। ইউরোপের অধিকাংশ দেশে খ্রিস্টধর্ম রাষ্ট্রধর্ম হিসেবে স্বীকৃত। সুতরাং বাংলাদেশের সংবিধানে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম থাকলে সমস্যা কোথায়?

Faridabad Jamia Sylhet

"সন্তান আপনার দায়িত্ব আমাদের" জামেয়া ইসলামিয়া ফরিদাবাদ সিলেট الجامعة الإسلامية فريد آباد سلهت بنغلاديش

You may also like...